দেশে ব্যবহৃত ইন্টারনেটের অর্ধেকের বেশি ব্যয় হচ্ছে পর্নোগ্রাফি ও বিভিন্ন অনলাইন গেমস এ।

দেশে ব্যবহৃত ইন্টারনেটের অর্ধেকের বেশি ব্যয় হচ্ছে পর্নোগ্রাফিক ও বিভিন্ন অনলাইন গেমস , সহ টিকটক ও লাইকি এর মত অ্যাপস এ।

উদ্বেগজনক এমন তথ্য উঠে আসে জাতীয় প্রেসক্লাবে নিরাপদ ইন্টারনেট বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে।

 ফ্রি-ফায়ার-পাবজির পর, টিকটক-লাইকির মতো অ্যাপ বন্ধের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছে বিটিআরসি। 

তাছারা নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিতে আইন করার কথাও ভাবা হচ্ছে।

ফ্রী ফায়ার পাবজি অনলাইন গেমসগুলো যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ আসার পরে বন্ধ করে দেওয়া হয় এসমস্ত গেমস।

বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে 20 হাজারের বেশি পর্ণোগ্রাফি সাইট।

তবে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে ইন্টারনেট সেবাদাতা দের সংগঠন আইএসপিএবি সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক।

বলেন বর্তমানে দেশে ব্যবহৃত ২৬শ’ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথের অর্ধেকই ব্যয় হচ্ছে টিক টক লাইকি অনলাইন গেমস ও পর্নোগ্রাফি দেখার  পেছনে যা দুঃখজনক।

বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় বলেন, আমাদের স্থায়ী সমাধানে যেতে হবে। তিনি আরো বলেন, সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ে একটি পলিসি খুবই‌ প্রয়োজন এখন।

প্রায় ১১ কোটি ৩৬ লাখ মুঠোফোন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে।

আর এক কোটি গ্রাহক ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহার করছে।

আরো পড়ুনঃ  DARK WEB কি?ইন্টারনেট এর আন্ধকার দুনিয়া।

Leave a Comment

%d bloggers like this: